ভোলার জংশন বাজারে আগুণ নিয়ন্ত্রণে প্রশংসনীয় ভুমিকা রাখলেন পুলিশ

ইয়ামিন হোসেন : ভোলা সদর উপজেলার উত্তর ভোলার গুরুত্বপূর্ণ একটি বাজার ইলিশা জংশন। দুই এক বছর পর পরই এ বাজারে আগুণের ঘটনা ঘটে। কিভাবে বা কেনো এ আগুণের ঘটনা ঘটে তার আদৌ কোন রহস্য উদঘাটন হয়নি।

এই আগুণে অতীতের মত গতরাত আনুমানিক ২:৩০ মিনিটের নিঃস্ব করে দিয়েছে ১১জন ছোটবড় ব্যবসায়ীকে। আগুণে প্রায় ৩ কোটি টাকার মত ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করেছে ব্যবসায়ীরা।
এদিকে আগুণের খবর শুণে তাৎক্ষণিক ছুটে গিয়ে ব্যবসায়ী ও ফায়ারসার্ভিসের সাথে আগুণ নিয়ন্ত্রণে প্রশংসনীয় ভুমিকা রেখেছে ইলিশা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম। একটি ভিডিওতে দেখা যায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা, এ এস আই মাইনুল হাসানসহ পুলিশ সদস্যরা ফায়ারসার্ভিস এর পানির লাইন নিয়ে, নিজেরাই পানি দিয়ে আগুণ নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছেন।
অন্য একটি ভিডিওতে দেখা যায়, ব্যবসায়ীদের মালামাল নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দিতেও সহযোগীতা করছেন ফাঁড়ির পুলিশ।  ইলিশা ফাঁড়ির ইনচার্জ গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বে পুলিশের এই মানবিকতা দেখে ব্যবসায়ীরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। ব্যবসায়ী কবির হোসেন বলেন, আগুনের কথা শুনেই তাৎক্ষণিক ফাঁড়ি থেকে পুলিশ এসে আমাদের মালামাল সরাতে এবং আগুণ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য তারা অনেক পরিশ্রম করেছে যা প্রশংসনীয়।
ইলিশা ফাঁড়ির ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা বলেন, আগুণ লেগেছে এমন খবর শুনেই আমি ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সব্বোর্চ চেষ্টা করেছি আগুণ নিয়ন্ত্রণ করতে এবং ব্যবসায়ীদের মালামাল যতটুকু সম্ভব নিরাপদে পৌঁছে দিতে।
এ ছাড়া তিনি আরো বলেন, অনেক সময় আগুণ লাগলে মালামাল হরিলুট হয়ে হয়ে যায় আমি ফোর্স দিয়ে চেষ্টা করেছি কোন মালামাল যেন হরিলুট না হয়।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।