লালমোহনে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, শ্বাশুড়ি গ্রেফতার

লালমোহন প্রতিনিধি ॥ ভোলার লালমোহনে বাথরুম থেকে নূরজাহান (৩০) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় তার শ্বাশুড়ি রানু বেগম (৫৫) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে উপজেলার বদরপুর ইউনিয়নের রায়রাবাদ এলাকার নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এরআগে শনিবার রাতে রায়রাবাদ গ্রামের ইউনূছ খনকারের বাড়ি থেকে ওই গৃহবধূ নূর জাহানের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় রাতেই নিহতের বাবা আব্দুল মতিন বাদী হয়ে মেয়ে নূরজাহানের স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়িসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। নিহত গৃহবধূ নূরজাহানের বাবার বাড়ি লালমোহনের কালমা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডে।
এ ব্যাপারে লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, নিহত গৃহবধূর বাবা বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামি করে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে থানায় একটি মামলা করেছেন। ওই মামলার ভিত্তিতেই শ্বাশুড়ি রানু বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামিরা পলাতক রয়েছেন। তাদের গ্রেফতারেও চেষ্টা চলছে।
লালমোহন থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. এনায়েত হোসেন বলেন, ওই গৃহবধূর সঙ্গে তার স্বামী কবিরের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল। এ নিয়ে আদালতে মামলা ছিল। যার কারণে নূরজাহান বেশির ভাগ সময় বাবার বাড়িতেই থাকতেন। তবে শনিবার সন্ধ্যায় বাথরুমে গিয়ে গৃহবধূ নূরজাহানের শ্বাশুড়ি তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এরপর তার ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এসে আমাদের খবর দেয়। পরে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।