ভোলায় বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত

মোঃ মাহে আলম মাহী: র‌্যালী ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে ভোলায় বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ছিল ‘মাটি: খাদ্যের সূচনা যেখানে’।

দিবসটি পালনের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন ও মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট জেলা কার্যালয়ের যৌথ আয়োজনে (৫ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০ টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তামিম আল ইয়ামিন এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী। এতে দিবসটির গুরুত্ব ও তাৎপর্যের উপর প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট জেলা কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আশিক এলাহী।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা স্কাউট সম্পাদক অধ্যক্ষ শাফিয়া খাতুন, সুজন এর সভাপতি মোবাশ্বের উল্যাহ চৌধুরী, জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ মাহমুদুল হাসান, জেলা প্রশাসনের মার্কেটিং অফিসার মোস্তফা সোহেল, জেলা ক্যাব সম্পাদক মোঃ সুলায়মান, বাসস প্রতিনিধি হাসনাইন আহমেদ মুন্না, ভোলা সরকারি কলেজের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগ ও মৃত্তিকা বিজ্ঞান ক্লাবের শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা বলেন, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজন টেকসই মৃত্তিকা ব্যবস্থাপনা, চাষের জমির উপযুক্ত ব্যবহার এবং অতিমাত্রায় সার ও কীটনাশকের ব্যবহার থেকে বিরত থাকা। যেহেতু ক্রমাগতভাবে আমাদের জনসংখ্যা বাড়ছে এবং আবাদি জমির পরিমাণ কমছে, তাই উন্নত জাত ও ফসল নিবিড়তা বৃদ্ধির মাধ্যমে অধিক খাদ্য উৎপাদনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে।’

বক্তারা আরও বলেন, ‘মাটির প্রতি যত্নশীল না হলে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। মাটির উর্বরতা ও উৎপাদনশীলতা বজায় রেখে অধিক ফসল উৎপাদন করতে হবে। মাটিতে অতিরিক্ত রাসায়নিক সার ব্যবহার পরিহার করে সুষম মাত্রায় সার প্রয়োগের মাধ্যমে মাটির সুস্বাস্থ্য ও পরিবেশ রক্ষা করতে হবে।’

প্রসঙ্গত, উদ্ভিদের জন্ম-বৃদ্ধিতে ও মানবকল্যাণে মৃত্তিকার গুরুত্বকে স্বীকৃতি দিতেই বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস নির্ধারণ করা হয়েছে। মৃত্তিকার সঠিক পরিচর্যার গুরুত্ব বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মৃত্তিকা বিজ্ঞানের আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন (আইইউএসএস) ২০০২ সালে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালনের প্রস্তাব উত্থাপন করে। পরে জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য সংস্থার অনুমোদন লাভের পর প্রতিবছর ৫ ডিসেম্বর বিশ্বব্যাপী দিবসটি উদযাপিত হয়।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।