একদিনের জন্য ফিরে গেলাম শৈশবে : মিলন মেলায় অতিথিরা

ছোটকালে যে ভাবে বন্ধুবান্ধবদের সাথে আড্ডা দিতাম, মজা করতাম, গল্প করতাম কর্ম ব্যস্ততায় হারিয়ে যায় সেই শৈশব। যোগাযোগ, দেখা সাক্ষাৎ সবই সোনালী অতীত। কিন্তু ঢাকার বুকে জংশন রিলেশন গ্রুপের মাধ্যমে আজকের এই মিলন মেলায় মনে হলো যে ফিরে এসেছি সেই শৈশবে। ফিরে গেছি বাল্য জীবনের আড্ডায় এ যেন এক টুকরো জংশন জড়ো হলো ঢাকার ধানমন্ডি দ্যা বাফেট স্টোরেজে। ঢাকাস্থ ভোলা ইলিশা জংশন রিলেশন সংগঠনের মিলনমেলায় এসব বলেন অতিথিরা। শুক্রবার (২৫ নভেম্বর ২০২২) রাজধানীর ধানমন্ডি দ্যা বাফেট স্টোরেজে দিনব্যাপী মিলন মেলায় অংশ নেন ইলিশা জংশনের নবীণ-প্রবীণ এবং বিশিষ্টজনেরা। মনোমুগ্ধকর এই আয়োজনে ইলিশা জংশনের আলোকিত, সম্মানিত ব্যক্তিবর্গসহ সব শ্রেণী পেশার মানুষের অংশগ্রহণে এ মিলন মেলা এক টুকরো ইলিশা জংশন হিসেবে ধরা দেয় ঢাকার বুকে।
ইলিশা জংশনের কৃতিসন্তান একুশে টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার এবং ইলিশা জংশন রিলেশন সংগঠনের প্রধান উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা রিয়াজ সুমনের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব মো. মফিজুল ইসলাম, গেস্ট অব অনার হিসেবে যোগ দেন ২নং ইলিশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ছোটন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লেফটেন্যান্ট কর্ণেল মেহেদী হাসান সিদ্দিকী মিঠু।
অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ইলিশা জংশনের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলাম। এছাড়া অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোরশেদ আলম নোমান, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে ডুকমেন্টশন কর্মকর্তা মো. নাজিম উদ্দিন, রাজ গ্রুপ অব কোম্পানির ম্যানেজার এবং বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও ইলিশা সমাজ কল্যাণ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সভাপতি নজরুল ইসলাম সুমনসহ বিশিষ্টজনেরা।
এবারের মিলন মেলার এ আয়োজনের ৮ সদস্য বিশিষ্ট বাস্তবায়ন কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন ইলিশা জংশনের কৃতি সন্তান রাজধানীর পুরান ঢাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রাশেদুল ইসলাম রাশেদ, সাংবাদিক রিয়াজ সুমন, ব্যবসায়ী আবু ইউসুফ আসিফ, মোসলে উদ্দিন ঝন্টু, খোরশেদ আলম লাভলু, তৌহিদুল ইসলাম সোহাগ, মো. ইসমাইল হোসেন, মো. পারভেজ। দায়িত্ব পালন করেন মো. জসিম উদ্দিন জয়, সর্দার কামরুল ইসলামসহ আরো অনেকে।
অনুষ্ঠানের শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্যে ইলিশা জংশন রিলেশন লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরেন সংগঠনের প্রধান উদ্যোক্তা এবং প্রতিষ্ঠাতা রিয়াজ সুমন। তিনি বলেন, ইলিশা জংশন রিলেশন শেকড়ের টানে সম্প্রীতির অনন্য বন্ধন। এই বন্ধন অটুট রাখতে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে চলেছি। জংশন রিলেশন ইতিমধ্যে ঢাকা এবং ভোলা সর্বত্র ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। সব মানুষের কাছে এটি একটি গ্রহণযোগ্য সংগঠন। সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক এবং অলাভজনক এ সংগঠন মানুষের কল্যাণে কাজ করছে। এই সংগঠন প্রিয় ইলিশা জংশনকে শতভাগ শিক্ষিত, মাদকমুক্ত এলাকা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে সহযোগী হিসেবে কাজ করবে। অসুস্থ্য মানুষের চিকিৎসায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়ার কথা বলেন তিনি। সবার মধ্যে ঐক্য এবং সম্প্রীতির বন্ধর সৃষ্টি করবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব মো. মফিজুল ইসলাম বলেন, ইলিশা জংশন রিলেশন সময়ের প্রয়োজনে দেশের কল্যাণে কাজ করবে বলে আশা করছি। এমন উদ্যোগ দেশ ও সমাজ গঠনে সহযোগী হয়ে কাজ করবে এটাও প্রত্যাশা করি। তিনি আরো বলেন, এ রিলেশন নিজেদের মধ্যে আরো বেশি ঐক্যের সৃষ্টি করবে। যে লক্ষ্য নিয়ে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে সেই লক্ষ্যে অবিচল থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সংগঠনটিকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে হবে। এসময় ইলিশার প্রিয় মানুষদের দেখে আবেগআপ্লুত হয়ে পড়েন তিনি। পাশাপাশি পরামর্শ ও উপদেশ দিয়ে সংগঠনের পাশে থাকার কথাও বলেন মফিজুল ইসলাম।
২নং ইলিশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ছোটন এ সংগঠনের মঙ্গল কামনা করে বলেন, এটি সব মানুষের প্রাণের সংগঠন হিসেবে সবার সামনে প্রতিষ্ঠিত হবে বলে বিশ্বাস করি। জংশনবাসী এই ঐক্য আরো সুদৃঢ় হবে বলেও আশা করেন তিনি। ইলিশা উন্নয়নে জংশন রিলেশনের প্রতিটি সদস্যকে পাশে থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, গোটা ইউনিয়নকে মাদক, চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে আপনাদের সবাইকে পাশে চাই। জংশন রিলেশন শুধুমাত্র ঢাকা ভিত্তিক না হয়ে এলাকার মানুষের কল্যাণে কাজ করারও আহ্বান জানান আনোয়ার হোসেন ছোটন।
লেফটেন্যান্ট কর্ণেল মেহেদী হাসান সিদ্দিকী মিঠু বলেন, নিজেদের মধ্যে এই বন্ধন সত্যিই প্রশংসনীয়। এই বন্ধন অটুট থাকলে যেকোনো বাধাই অতিক্রম করা সম্ভব। সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্চ নিজেদের মধ্যে ঐক্য ধরে রাখা।
রাজ গ্রুপের ম্যানেজার ও ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম সুমন বলেন, জংশন রিলেশন প্রমাণ করেছে নিজেদের মধ্যে বন্ধন কিভাবে সুদৃঢ় করতে হয়। এভাবে এক সাথে পথ চললে এই সংগঠন তার অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের ডুকমেন্টশন কর্মকর্তা মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, সমাজ বিনির্মাণে ঐক্যবদ্ধ থাকার কোনো বিকল্প নেই। তাই আমি মনে করি জংশন রিলেশন ঐক্য সৃষ্টির একটি প্লাটফর্ম। সবাইকে আরো বেশি ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বানও জানান তিনি।

গাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোরশেদ আলম নোমান বলেন, ঢাকার বুকে ইলিশার জংশন রিলেশনের এমন আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয় উদ্যোগ। এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এলাকার উন্নয়ন এবং নিজেদের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নে এই সংগঠন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। শিক্ষা উন্নয়ন, মাদক, অসুস্থ্য রোগীর চিকিৎসা মানুষের বিপদে আপদে এই সংগঠন মানুষের থেকে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।
ইলিশা সমাজ কল্যাণ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক ইয়ামিন হাওলাদার বলেন, জংশন রিলেশন আমাদের মধ্যে নতুন আবেগ সৃষ্টি করেছে। এই বন্ধন আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ থাকার নতুন পথ দেখাবে বলে আমি বিশ্বাস করি। পাশাপাশি এর পরিসর আরো বৃদ্ধি পাবে বলেও মনে করি।
অনুষ্ঠানের সভাপতি গাজীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়েল সিনিয়র সহকারি শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, আমার ছাত্র, এলাকার ছোট ভাই, স্বজনদের এই আয়োজনে অংশ নিতে পেরে আমি সত্যিই খুব আনন্দিত। শুরু থেকে জংশন রিলেশন বিতর্কের উর্ধে থেকে কাজ করার চেষ্টা করছে এটাকে আমি সাধুবাদ জানাই। বলেন, এই সংগঠন হোক দু:খী অসহায় মানুষের ঠিকানা, মানুষের কল্যাণে কাজ করুক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত সবাই এটাই প্রত্যাশা করছি।
এছাড়া অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ইঞ্জিনিয়ার নিজাম উদ্দিন, শিহাব উদ্দিন, ঠিকাদার বাবুল মিয়া, ইলিশা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার সালাউদ্দিন, ব্যবসায়ী সায়েদ আলী মিয়া, সাংবাদিক ইকবাল হোসেন রাজু, সাংবাদিক ইউসুফ, ডিপিডিসি নেতা তারেক আজিজ, ব্যাংকার শাহাদাত হোসেন, ইমরান হোসেন সবুজ, মাকসুদুর রহমান, গুলশান থানা কৃষক লীগের সভাপতি মনোয়ার হোসেন বাবু, নীহা গ্রুপের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম রাশেদসহ বিশিষ্টজনেরা।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।