৩২ বছর পর মুসলিম শিক্ষক পেল শিক্ষার্থীরা

প্রায় ৩২ বছর পর মুসলিম শিক্ষক পেয়েছে ভোলার লালমোহনের লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের অন্নদা প্রসাদ জিএম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গত বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আকতারুজ্জামান মিলনের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে মাহিনুর বেগম নামের এক শিক্ষককে সাময়িক ডেপুটেশনে ওই বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়। মাহিনুর বেগম এরআগে সৈয়দাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
জানা যায়, ১৯৯০ সালে অন্নদা প্রসাদ জিএম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি রেজি:ভূক্ত হওয়ার পর থেকে বিদ্যালয়টিতে কোনো মুসলিম শিক্ষক ছিল না। এতে করে বিদ্যালয়ের মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীদের ধর্মীয় পাঠদানে বিঘ্ন ঘটতো। এবিষয়টি বিবেচনা করে উপজেলা শিক্ষা অফিস ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয়ের পাঠদানের জন্য মাহিনুর বেগম নামের ওই শিক্ষককে বিদ্যালয়টিতে পদায়ন করা হয়।
অন্নদা প্রসাদ জিএম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বিশ্বজিৎ দাস বলেন, বিদ্যালয়টিতে মোট ১৫৭ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। এরমধ্যে ৮০-৮৫ জন শিক্ষার্থী মুসলিম। এদের জন্য ধর্মীয় কোনো শিক্ষক বিগত কয়েক বছর ধরে ছিল না। বর্তমানে একজন ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয় পাঠদানের জন্য মুসলিম শিক্ষক পদায়ন করা হয়েছে। এতে করে মুসলিম শিক্ষার্থীদের জন্য সুবিধা হবে। এছাড়া বিদ্যালয়টিতে মোট ৫ জন শিক্ষকের স্থানে রয়েছে ৩ জন।
এব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আকতারুজ্জামান মিলন জানান, ওই স্কুলে দীর্ঘদিন যাবত মুসলিম শিক্ষক ছিল না। এজন্য মুসলিম শিক্ষার্থীদের ধর্ম শিক্ষা বিষয়ে পাঠদানে বিঘ্ন ঘটতো। বিষয়টি বিবেচনা করে ওই বিদ্যালয়ে সাময়িক ডেপুটেশনে একজন মুসলিম শিক্ষককে পদায়ন করা হয়েছে। এছাড়া শিক্ষককের যে সংকট রয়েছে, তা শিগগিরই সমাধান করা হবে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।