হাজার মানুষের ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন চেয়ারম্যান বশির আহমেদ

হাজার মানুষের ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বৃহত্তর ইলিশা ইউনিয়ন একসময়ের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান বশির আহমেদ।

দীর্ঘ দিন অসুস্থ থাকার পর বুধবার সকালে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
সন্ধ্যায় তিনি সদর হাসপাতালে  শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে পরপারে না ফেরার দেশে গেছেন।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন সাবেক মন্ত্রী ভোলা সদর আসনের এমপি তোফায়েল আহমেদ,জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি,ফজলুল কাদের মজনু মোল্লা এবং জেলা পরিষদ প্রশাসক আব্দুল মমিন টুটু সহ জেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দ ।

পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক এই চেয়ারম্যান মৌঃ বশির আহমেদ ছিলেন জাতীয় নেতা জনাব তোফায়েল আহমেদ এমপি মহোদয়ের একান্ত আস্থাভাজন এবং ইলিশা ইউনিয়ন বাসির শ্রদ্ধেয় জন।

সুত্রমতে জানা যায় মৌলভি বশির আহমেদ তিন বার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।
তার পুত্র গিয়াস উদ্দিন চেয়ারম্যান ছিলেন।
মরহুম মৌঃ বশির আহমেদ ছিলেন,দলের নিবেদিতপ্রাণ, নির্যাতিত ও ত্যাগী আওয়ামী লীগ নেতা।

ঢাকা থেকে জানাযায় টেলিকনফারেন্সেের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে তিনবারের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান মরহুম মৌঃ বশির আহমেদ এর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা সহ শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সহমর্মিতা জ্ঞাপন করেন।

সকলের শ্রদ্ধেয় মৌলভি বশির আহমেদ এর মৃত্যুতে পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের এক অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেলো।

তিনি আরো বলেন হে সর্বশক্তিমান মহান আল্লাহ রাব্বুল মরহুম মৌলভি বশির আহমেদকে জান্নাতবাসী করুন, আমিন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আ’লীগের সাবেক সিনিয়র যুগ্ন সাধারন সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সফিকুল ইসলাম, উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেনসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ও সম্পাদক এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দরা। জানাযা নামজ শেষে মরহুমকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।