মনপুরায় ২৫ দিন পর নিখোঁজ মাদ্রাসার ছাত্রকে উদ্ধার করলো পুলিশ

ভোলার মনপুরায় নিখোঁজ হাফেজিয়া মাদ্রাসায় পড়–য়া এক ছাত্রকে উদ্ধার করে পুলিশ। নিখোঁজের ২৫ দিন পর ঢাকার সদরঘাট এলাকার গোলাম বাজার আশ্রয়কেন্দ্র থেকে উদ্ধার করে মনপুরা নিয়ে আসে এস.আই সুভাষ ও এস.আই মনিরের নের্তৃত্বে পুলিশের একটি টিম। পরে উদ্ধার হওয়া ওই ছাত্রকে পরিবারে হাতে তুলে দেন মনপুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইদ আহমেদ। বুধবার সকালে থানা ভবনে ওসির কার্যালয়ে ওই ছাত্রকে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। হারানো ছেলেকে পেয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন উদ্ধার হওয়া ছাত্রের মা পিয়ারা বেগম।
উদ্ধার হওয়া মাদ্রাসার ছাত্র হলেন, উপজেলার ৩ নং উত্তর সাকুচিয়া ইউনিয়নে ৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মাহে আলম ও পিয়ারা বেগমের সন্তান মোঃ ইব্রাহীম (১২)। তিনি মাষ্টারহাট নুরানি ও হাফেজিয়া মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র।
পুলিশ ও ওই ছাত্রের মা পিয়ারা বেগম সূত্রে জানা যায়, গত ২০ জুলাই সকালে মাদ্রাসা যাওয়ার কথা বলে ঘর থেকে বের ইব্রাহীম। পরে মাদ্রাসা ছুটি হলে ঘর ফিরে না আসায় পরিবার খোঁজাখুজি শুরু করে। একপর্যায়ে আতœীয়-স্বজনের বাড়ি সহ অন্যান্য স্থানে খোঁজ করে না পেয়ে ৮ আগস্ট মনপুরা থানায় সাধারন ডায়রি করে মা পিয়ারা বেগম। পরে এসআই সুভাষ ও এসআই মনিরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ওই ছাত্রকে উদ্ধারে তৎপর হয়ে উঠে। পরে ১৫ আগস্ট সোমবার ঢাকার মানবাধিকার সংস্থার সহযোগিতায় পুলিশ ঢাকার সদরঘাট এলাকার গোলাম বাজার আশ্রয়কেন্দ্র থেকে নিখোঁজ মাদ্রাসার ছাত্র ইব্রাহীমকে উদ্ধার করে ১৬ আগস্ট মঙ্গলবার মনপুরা নিয়ে আসে। পরে পরিবারের কাছে উদ্ধার হওয়া মাদ্রাসার ছাত্র ইব্রাহীমকে তুলে দেন ওসি।
মনপুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইদ আহমেদ জানান, নিখোঁজ মাদ্রাসার ছাত্রকে উদ্ধার করতে পুলিশের টিম গত ৭ দিন ধরে নিরলসভাবে কাজ করেছে। পরে ঢাকার সদরঘাট এলাকা গোলাম বাজার আশ্রয়কেন্দ্র থেকে উদ্ধার করা হয়। পরিবারের কাছে উদ্ধার হওয়া ছাত্রকে তুলে দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, ভুল করে ওই মাদ্রাসার ছাত্র মনপুরার রামনেওয়াজ লঞ্চঘাট থেকে ঢাকাগামী লঞ্চে ওঠে ঢাকায় চলে যায়। পরে সদরঘাট এলাকা গোলাম বাজার আশ্রয়কেন্দ্র ওই ছাত্র আশ্রয় নেয়।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।