গুলিবিদ্ধ নুরে আলম লাইফ সাপোর্টে

বিদ্যুতের লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে ভোলায় গতকালের সমাবেশে পুলিশের গুলিতে গুলিবিদ্ধ আহত ভোলা জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নুরে আলমের অবস্থা সংকটাপন্ন। বর্তমানে তিনি রাজধানী ঢাকার গ্রীণ রোড কমফোর্ট হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে আছেন। তাঁর মাথা, বুক, হাত-পা ও মুখম-ল গুলিবিদ্ধ হয়েছে। শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। আজ সোমবার (১ আগষ্ট) দুপুরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর হাফিজ, সাবেক এমপি নাজিমুদ্দিন আলম, বিএনপির নেতা হায়দার আলী লেলিন, নুরুল ইসলাম নয়ন তাকে দেখতে কমফোর্ট হাসপাতালে গিয়েছেন। ভোলা জেলা ছাত্রদলের প্রস্তাবিত কমিটির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ও ভোলা সদর উপজেলা ছাত্রদলের নির্বাহী সদস্য মহসিন সবুজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, গতকাল সংঘর্ষের পর প্রথমে তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে বরিশাল শেরে-বাংলা (শেবাচিম) মেডিকেলে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা নিউরো সায়ন্স হাসপাতালে প্রেরণ করেন। গতকাল রাত ৯টার দিকে নিউরো সায়ন্স হাসপাতালে তাকে ভর্তি করানো হয়। এরপর রাত ১০টার দিকে ওই হাসপাতাল থেকে তাকে গ্রীণ রোড কমফোর্ট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে কমফোর্ট হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে আছেন তিনি।
মহসীন সবুজ আরও জানান, সংঘর্ষে যে কয়জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে নুরে আলমের অবস্থাই সংকটাপন্ন। এছাড়া ভোলা ও বরিশাল শেরে-বাংলা মেডিকেলে যাঁরা চিকিৎসাধীন আছেন। তাঁরা মোটামুটি ভালোই আছেন। জেলা, উপজেলাসহ কেন্দ্রীয় নেতারা আহতদের সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নিচ্ছেন বলেও জানান তিনি।
উল্লেখ, গতকাল ৩১ জুলাই বিএনপি ঘোষিত সারাদেশে নজিরবিহীন বিদ্যুৎ লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে ভোলা জেলা বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশ বিএনপির সংঘর্ষে স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য আব্দুল রহিম নিহত হন।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।