ভোলায় চাঞ্চল্যকর প্রবীর মাঝি হত্যার মুল পরিকল্পনাকারী আটক

ভোলা সদর উপজেলা দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নে ৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা বাংলাবাজার ওষুধ ব্যবসায়ী চাঞ্চল্যকর প্রবীর মাঝি হত্যার অন্যতম মুল পরিকল্পনাকারী মোঃ নুরনবী (২০), পিতা. মোজাম্মেল মিস্ত্রীকে আটক করেছে ভোলা সদর থানার পুলিশ। ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার গোপন তথ্য সূত্রের ভিত্তিতে সকাল ১০টার দিকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা (এসআই) কাজল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ ফোর্স বাংলাবাজার উপ শহরে এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে হত্যা মামলার অন্যতম আসামিকে আটক করে সদর মডেল থানার পুলিশ।
এ বিষয়ে ভোলা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ এনায়েত হোসেন জানান, প্রবীর মাঝিকে হত্যার পর দীর্ঘ ৫ মাস পলাতক থাকার পর আটক করা হয় হত্যার সাথে জড়িত অন্যতম আসামি। আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে সাক্ষ্য দিয়েছে। তিনি আরো জানান, তার কাছ থেকে হত্যার পরিকল্পনার বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। এছাড়া তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সে এই হত্যার অন্যতম মুলহোতা বলেও জানান তিনি।
হত্যা মামলার এজহার ভুক্ত আটক আসামিকে আদালতে হাজির করে রিমান্ডে চাইবে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। হত্যা ঘটনায় জড়িত অন্যন্য আসামিরা অতি দ্রুত আটক করতে পুলিশের পক্ষ থেকে সকল প্রকার চেস্টা অব্যাহত রয়েছে।
এদিকে উক্ত হত্যা মামলার আসামিদের মধ্যে এ পর্যন্ত পুলিশ এজাহারভুক্ত মোট ৪ জন হত্যাকারী আসামিদের আটক করতে সক্ষম হয়েছে। তারা হলো- মো. শাহাবুদ্দিন, মো. হাসান, মো. আনোয়ার এবং সর্বশেষ মো. নুরনবী।
উল্লেখ্য, গত ২০জুন ২০২০ইং শনিবার রাত আনুমানিক ১১টার সময় বাংলাবাজার থেকে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিতে বাড়ি ফেরার পথে প্রবীর মাঝি ও ভাই সজীব মাঝির পথ গতিরোধ করে ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্য এলোপাতাড়ি কুপিয়ে যখম করে তারা। এসময় নগদ অর্থ হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা। ঘটনায় ব্যাবসায়ী প্রবীর মাঝি নিহত হয় এবং সজীব মাঝি গুরুতর আহত হয়।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।