বোরহানউদ্দিনে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৮

(প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা)

ভোলার বোরহানউদ্দিনে কাচিয়া ২ নং ওয়ার্ডে ছাগল দ্বারা কাঁঠালের চারাগাছ নষ্ট হওয়ায় প্রতিপক্ষের উপর হামলা, টাকা পয়সা ও স্বর্ণ অলংকার ছিনতাইয়ের অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। বুধবার (২৮ অক্টোবর) সকাল ৮ ঘটিকার সময় সাদ্দামের নেতৃত্বে প্রতিপক্ষের উপর এই অতর্কিত হামলা চালানো হয়।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, সাদ্দামের ভাইয়ের কাঁঠালের চারাগাছ নিরব এর ছাগল খেয়ে ফেলায় সাদ্দাম তার দলবল নিয়ে নিরবের বাড়িতে এসে হুমকি দেয়। নিরব তাকে তার ক্ষতিপূরণ বুঝিয়ে দিবে বললেও সে নিরবের কথা না শুনে তার দলবল নিয়ে নিরব ও কালুমিয়ার পরিবারের উপর হামলা চালায়। এতে মহিলা ও শিশুসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। গুরুত্বর আহতেরদের বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতরা হলেন- সালমা (১৬), সম্মেহার (৬৫), শাবনুর (১৪), সবুজ (৩৫), কালু (৫০), নিরব (৪৫), মিতু (২৮)।
ভুক্তভুগী কালুমিয়া ও নিরব বলেন, সাদ্দাম পূর্ব থেকেই তাদের সাথে বিভিন্ন কারন বসত ঝগড়া ও হুমকি দিয়ে আসতো। ইতিপুর্বেও সাদ্দাম নিরবের একটি ছাগল নিয়ে মেরে ফেলেন। মেম্বারসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিরা এর ক্ষতিপূরণের কথা বললেও তা আমরা পাইনি। এর জের ধরেই শুরু হয় শত্রুতা। সকাল ৮ টায় ছাগলের তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাদ্দাম ও তার সাথে (৩৫-৪০) জন লোক নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায় এতে ৮ জন আহত হই। আমার ছোট বাচ্চাও রেহাই পায়নি ওদের হাত থেকে। তারা আমার বাসা থেকে দেড় লাখ টাকা ও ২৭ হাজার টাকার স্বর্ণ ছিনিয়ে নেয় এবং আমার চাচার বাসা থেকে ৫৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। তারা সবসময় আমাদের আতংকের মধ্যে রাখে। মাননীয় এমপির কাছে আকুল আবেদন আমাদেরকে এদের অত্যাচার থেকে উদ্ধার করেন।

অভিযুক্ত সাদ্দামের সাথে সাংবাদিকরা মুঠোফোনে বিষয়টি জানতে চাইলে সে বলেন, তাদের উপর হামলাতো দুরের কথা তাদের বাড়িতেই আমি প্রবেশ করিনি। তৃতীয়পক্ষ আমার সন্মান নষ্ট করার জন্য আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ করেছেন।
কাচিয়া ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার বলেন, এলাকার লোকজন বিষয়টি আমাকে ফোনে জানিয়েছেন। ইতিপূর্বেও এই অসহায় পরিবারটি হামলার স্বীকার হয়েছে। আমি কাজের জন্য ঘটনাস্থলে যেতে পারিনি। কাল অবশ্যই বিষয়টি আমি নিজে গিয়ে দেখবো।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।