সর্বশেষঃ

দৌলতখানে মাদকমুক্ত ওয়ার্ডের প্রতিশ্রুতি সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের

দিন যত যাচ্ছে ততই ঘনিয়ে আসছে ভোলার দৌলতখান পৌরসভার নির্বাচন। আগামী ডিসেম্বর ও জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হতে পারে পৌর নির্বাচন। ৯টি ওয়ার্ড রয়েছে দৌলতখান পৌরসভায়। এরই মধ্যে সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে গণসংযোগ শুরু করেছেন।

এবার আসন্ন পৌর নির্বাচনে দৌলতখান পৌরসভা ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের আলোচনায় ও জনপ্রিয়তায় বর্তমান কাউন্সিলর নুরুল ইসলাম ও সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আশরাফুল আলম বিপ্লব ও সাবেক পৌর ছাত্রলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রবের নাম।

advertisement
তাদেরকে দৌলতখান পৌরসভা ৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে দেখতে চান স্থানীয় ওই ওয়ার্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে অনেকেই ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে তাদেরকে দেখতে চেয়ে নিজ নিজ আইডি থেকে একাধিক পোস্ট দিয়েছেন।

এছাড়া ওই এলাকার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, রাজনৈতিক যোদ্ধা, রাজনৈতিক শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রাণের দাবি জানিয়ে তাদেরকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে পোস্টের মাধ্যমে সমর্থন জানিয়ে ভোলা-২ আসনের সংসদ আলী আজম মুকুলের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। এই প্রার্থীরা রাজনীতিতে সংযুক্ত হওয়ার পর থেকেই ভোলা-২ আসনের এমপি আলী আজম মুকুলের রাজনৈতিক আদর্শের অনুসারী হয়ে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন।

advertisement
সুদীর্ঘ সময়ের রাজনৈতিক অঙ্গনে এই তিন প্রার্থী ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি হিসেবে পুরো উপজেলা জুড়ে সুপরিচিত। স্থানীয় আওয়ামী সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ জানান, পৌরসভা ৪ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে জনপ্রিয়তায় এই তিনজনের নাম। দলের সঙ্গে সম্পৃক্ততা ও দলীয় যেকোনো প্রোগ্রামে তাদের ভূমিকা অনেক প্রশংসনীয়, ওই ওয়ার্ডের মানুষের আপদবিপদে সর্বদা তারা মানুষের পাশে দাঁড়ান। সেই সকল দৃষ্টিকোণ থেকে নিঃসন্দেহে তারা তিনজনই যোগ্য প্রার্থী।

বর্তমান কাউন্সিলর নূরুল ইসলাম বলেন, ‘আমি পরপর দু’বার বিজয়ী হয়ে জনগণের সেবা করার সুযোগ পেয়েছি। আমার অভিভাবক ভোলা-২ আসনের এমপি আলী আজম মুকুলের নির্দেশে পৌর মেয়র জাকির হোসেন তালুকদারের সহযোগিতায় এলাকার বেশির ভাগ সমস্যার সমাধান করেছি। এছাড়াও সার্বিক উন্নয়নে সর্বদা নিয়োজিত ছিলাম। এ পর্যন্ত পৌর ৪ নম্বর ওয়ার্ডে ১৫টি গভীর নলকূপ, ৭টি কাভার ড্রেন, ও মহিলা কলেজের সংযোগ সড়ক নির্মাণ হযেছে। এছাড়াও দৌলতখান মহিলা কলেজ থেকে ভোলা সড়ক পর্যন্ত একটি আধুনিক সড়কের কাজ চলমান রয়েছে। এমপি আলী আজম মুকুলের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী চরখলিফা মাদ্রাসায় একটি ৩৯ লাখ টাকা ব্যয়ে আধুনিক টয়লেট নির্মাণ করা হয়েছে, বর্তমানে চারটি রাস্তা ও একটি ড্রেনের কাজ চলমান রয়েছে।

অন্য সম্ভাব্য প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আশরাফুল আলম বিপ্লব বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে আমি নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখব। নির্বাচিত হলে প্রতিটি রোডভিত্তিক এলাকার সার্বিক সমস্যা ও পরিষ্কার রাখার জন্য কমিউনিটিভিত্তিক কমিটি সেন্টার নির্মাণ করব। বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও ময়লা নির্ধারিত জায়গায় যাতে ফেলা হয় সেই ব্যবস্থা নেব। একটি আদর্শ ও মডেল ওয়ার্ড হিসেবে যেভাবে গড়ে তোলা যায় আমি সেই চেষ্টা করব।’ এছাড়াও মুসলমানদের জন্য একটি আধুনিক মসজিদ ও হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য একটি আধুনিক মন্দির স্থাপন করার আসা ব্যক্ত করেন এই প্রার্থী।

আরেক সম্ভাব্য প্রার্থী সাবেক পৌর ছাত্রলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুর রব বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার আমি একজন আদর্শ সৈনিক। আমি নির্বাচিত হলে এই ওয়ার্ডের জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌছে দেব। আমি আশাবাদী, সুযোগ পেলে নতুন প্রজন্মের জন্য মাদক সন্ত্রাস চাঁদাবাজ ভূমিদস্যুতা ও দুর্নীতিমুক্ত সুন্দর পরিচ্ছন্ন ডিজিটাল ওয়ার্ডে রূপান্তর করব এবং উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখব। নির্বাচিত হলে প্রতিটি রোডভিত্তিক এলাকার সার্বিক সমস্যা ও পরিষ্কার রাখার জন্য কমিউনিটিভিত্তিক কমিটি সেন্টার নির্মাণ করব।’

প্রার্থীরা আরও জানান, তারা যার আদর্শ অনুসরণ করেন, সেই প্রিয় নেতা আধুনিক উন্নত ভোলা-২ আসন গড়ার কারিগর আলী আজম মুকুল এমপির ওপর তাদের সব সিদ্ধান্ত। আলী আজম মুকুল এমপির সিগনাল পেলে ইনশাআল্লাহ তারা নির্বাচন করতে প্রস্তুত রয়েছেন। নির্বাচিত হলে তাদের সবার রাজনৈতিক অভিভাবক আদর্শ নেতার সুদীর্ঘ সময়ের সোনালী অর্জন অটুট রাখবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।