সর্বশেষঃ

ভোলার বাপ্তায় ওয়ার্ড উপ-নির্বাচনে ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগ ॥ জনমনে আতঙ্ক

ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডে উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে ককটেল বিস্ফোরণ জনগণের মনে আতঙ্ক ছড়িয়েছে বলে অভিযোগ করেন ফুটবল প্রার্থী কামাল হোসেন।
তথ্যসূত্র জানা যায়, বাপ্তা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মোঃ নজরুল ইসলাম ইউপি সদস্য অসুস্থ্য হয়ে মারা যাওয়ার পর থেকে ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদটি শূন্য হয়। শূন্য পদটি পূরণ করার জন্য উপ নির্বাচনের ঘোষণা দেয় নির্বাচন কমিশন। ওই নির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে সাবেক ইউপি সদস্য মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে মোঃ কামাল হোসেন, এবং মোঃ শাহজাহান ও প্রার্থী মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন বাবলু প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে লড়াই করেন। নির্বাচনী আচরণ বিধি মোতাবেক প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেন কামাল হোসেন।
নির্বাচনের নির্ধারিত তারিখ এই মাসের ২০ তারিখ। তারই সুবাধে জনগণের মনে নির্বাচনী আমেজ বইছে। এ মুহূর্তে ওই এলাকার সরদার বাড়ীর দরজায় জিয়া উদ্দিন বাবলুর মোরগ মার্কার একটি ক্লাব তৈরি করা হয়। ওই জায়গাতে দুই দিন ধরে ককটেল বিস্ফোরণ এর আওয়াজ শোনা যাচ্ছে। এতে সাধারণ জনগণের ভিতরে নির্বাচনী ইমেজ নষ্ট হয়ে এখন আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে জানা যায়।
এ বিষয়ে প্রার্থী মোঃ কামাল হোসেন এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমার জনপ্রিয়তাতাকে নষ্ট করার জন্য জিয়া উদ্দিন বাবলু আমার রাতের আধারে তার অফিসের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ করে। তাতে আমরা যেন তার বাড়ির দরজার কেন্দ্রটিতে জনগণকে নিয়ে ভোট দিতে যাইতে না পারি এ জন্য বাঁধা সৃষ্টি করছে ও আমার নামে প্রতিপক্ষ শাহজাহান এর নামে মিথ্যা মামলা দেওয়ার জন্য একাধিকবার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যে কোন মুহূর্তে ওরা আমাদের এই সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচনকে বানচাল করার জন্য চেষ্টা করবে। এবং জনগণ যাতে ওই কেন্দ্রে ভোট দিতে যেতে না পারে সে ব্যবস্থা করবে।
জিয়া উদ্দিন বাবলুর বাড়ির দরজায় নির্বাচনীয় কেন্দ্র। ওরা জনগণের মন না জয় করে ককটেল এবং দাঙ্গা-হাঙ্গামার মাধ্যমে জনগণের ভোট নষ্ট করছে। আমি ওদের বিচার চাই, এবং আমার এলাকাবাসী যেন সুষ্ঠভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারে সে ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।
এ ব্যাপারে মোরক মার্কার প্রার্থী জিয়া উদ্দিন বাবলুর সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমার কেন্দ্র বোমা বা ককটেলের কোন ঘটনা ঘঠেনি, এমন ঘটনা ঘটলে এলাকার জনগন জানতো।
এদিকে অন্য প্রার্থী শাহজাহান এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমরা বাবলুর বাড়ির দরজার কেন্দ্রে ভোট দেয়ার জন্য উপস্থিত থাকবো। আমরা আশা করি সুষ্ঠভাবে নির্বাচন পরিচালনা হবে। যে যে দলের হোক না কেন, আমাদের জনগণের ভোটের অধিকার থাকবে। দল-মত নির্বিশেষ আমরা আমাদের পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নিতে পারব। আমরা কোনো দাঙ্গা-হাঙ্গামা চাইনা, সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন হয় এটাই আমরা চাই।
এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বাপ্তা ইউনিয়ন ৮ নং ওয়ার্ডের সরদার বাড়ীর দরজার কেন্দ্রে প্রতি নির্বাচনেই দাঙ্গা-হাঙ্গামা চলে আসছে। লাঠি, রড, দা-কুড়াল নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে প্রার্থীরা। এই বছর উপনির্বাচন টি যাতে সুষ্ঠুভাবে হয় এ জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।
এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিপ্লব মোল্লাহ বলেন, আমি অসুস্থ্য বাসায় ই থাকি। ৮নং ওয়ার্ডে উপ নির্বাচনে ককটেল বা মোবা বিষ্ফোরন হইছে কিনা জানি না। আমাকে কোন প্রার্থী বা এলাকার জনগন এ ঘটনাটি জানায় নাই।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।