ভোলায় মানব সেবায় কাজ করছে গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থা

(ভোলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মো: আতাহার মিয়ার কাছ থেকে চেক গ্রহণ করেছেন গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ ইকবাল মাল।)

ভোলায় মানব সেবায় কাজ করে যাচ্ছে গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থা। ভোলা সদর উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের দরিদ্র ও অসহায় মানুষের সাহায্যার্থে বিভিন্নভাবে তাদের পাশে দাঁড়াচ্ছে এ সংস্থাটি। সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে ২০০৭ সালে সেবামূলক অলাভজনক সংস্থা হিসেবে নিবন্ধন পায় এটি।
গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ ইকবাল মাল বলেন, আমাদের সংস্থার কার্যক্রম ২০০৬ সালে শুরু করি। আমাদের সংস্থার মাধ্যমে গরীব অসহায় মেয়েদের বিবাহ প্রদানে আর্থিক সাহায্য প্রদান করে থাকি। আর্থিক ভাবে অসচ্ছল ব্যক্তিদের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্য প্রদান করি । গরিব শিশুদের জন্য একটি কোচিং সেন্টার চালু করেছি যেখানে প্রতিদিন বিকেল চারটা থেকে পাঁচটা পর্যন্ত বিনা বেতনে পরানো হয় এবং ওই শিশুদের প্রতি বৃহস্পতিবার বিনামূল্যে খাবার দেয়া হয়। সংস্থার পক্ষ থেকে প্রতি বছর শীতের সময় অসহায় দরিদ্র মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।
গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ ইকবাল মাল আরো বলেন, এ মানব কল্যাণ সংস্থার পক্ষ থেকে পরিবেশ উপযোগী বিভিন্ন ঔষধি গাছ, ফলজ গাছ রোপণ ও বিতরন করা হয়। সামাজিক বনায়নে ভূমিকা রাখায় গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থাকে বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে ৩০ হাজার টাকার অনুদান প্রদান করা হয়েছে। যে অনুদানের চেক আমি গত ৮ সেপ্টেম্বর ভোলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মো: আতাহার মহোদয়ের কাছ থেকে গ্রহণ করেছি।
গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থার কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে চাইলে ভোলা সদর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ দেলোয়ার হোসেন বলেন, সংস্থাটির কার্যক্রম আমার কাছে অনেক ইতিবাচক মনে হয়েছে। আমি তাদের কার্যালয়ে গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে হতদরিদ্র বাচ্চাদের বিনামূল্যে পড়ানোর কার্যক্রমটি দেখেছি এবং শীতকালে বস্ত্র বিতরণের সময় ও আমি সেখানে উপস্থিত ছিলাম। সংস্থাটির চেয়্যারম্যান ইকবাল গ্রামীণ মানব কল্যাণ সংস্থা ধারা সমাজ সেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। নিয়ম অনুসারে সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে সংস্থাটিকে যতটুক সহায়তা করা যায় আমি চেষ্টা করব।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।