সর্বশেষঃ

ভোলা রাজাপুরের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলায় গ্রেফতার -৩।। থমথমে রাজাপুর

 

ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ক্লোজার বাজারের হেলাল মেম্বার গ্রুপ ও ফকির বাহিনীর আধিপত্য লড়াইয়ে গত ৪ দিন ধরে আতঙ্ক বিরাজ করেছে পুরো রাজাপুর ইউনিয়ন।
৪ দিনের ঘটনায় ক্লোজার বাজার ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করার পরেও আতঙ্ক কাটেনি তাদের।
সূত্রে জানা যায়, রাজাপুর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান হেলাল মেম্বার ও বিএনপির নেতা হারুন ফকির গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন আধিপত্য বিস্তার চলে আসছে।
সর্বশেষ গত ৪ দিন আগে মাছধরা কেন্দ্র করে প্রকাশে হামলা ভাংচুর করা হয়।
এর পরই হেলাল মেম্বার গ্রুপের সাথে যোগ দেয় দেওয়ান গ্রুপ অন্যদিকে ফকির বাহিনীর সাথে কালাম সিকদার, খোকন মৃধা,কবির মঞ্জুর একাত্মতা প্রকাশ করলে পাল্টাপাল্টি হামলা শুরু হয়।
যেই হামলায় উভয় পক্ষের অনেকেই আহত হয়েছেন এবং ভাংচুর হয়েছে মুরগীর খামার ও দোকানপাট।
অবশেষে পুলিশ দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি মামলা নিয়ে মেম্বার গ্রুপের প্রধান হোতা হেলাল মেম্বার ও ফকির গ্রুপের কালাম সিকদার কে আটক করে কোর্টে প্রেরণ করার পর পরিস্থিতি থমথমে বিরাজ করেন।
ক্লোজার বাজারের ব্যবসায়ী কামাল জানান, সকাল থেকে মাত্র ৫০ টাকার মালামাল বিক্রি করেছি তার পরেও আতঙ্কে থাকি, কখন এসে আবার হামলা করে।
তবে স্থানীয়রা জানান, হেলাল মেম্বার গ্রুপ ও ফকির গ্রুপ সব সময়ই মানুষের উপর অত্যাচার জুলুম করে আসছে, তারা মানুষের ক্ষতি করতে করতে আজ নিজেদের মধ্যেই কোন্দল সৃষ্টি হয়েছে যা আজ প্রকাশে রুপ নিয়েছে।
মাসুদ সিকদার বলেন, গত ৪ দিন ধরে হঠাৎ দুই পক্ষই লাঠিসোঁটা এবং দা নিয়ে বাজারে মহড়া দেয় এবং দাওয়া – পাল্টা করে।
তবে ইলিশা ফাঁড়ির পুলিশ শক্ত ভূমিকা না নিলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ রুপ নিতো বলেও জানান তিনি।
এই বিষয়ে ভোলা সদর থানার ওসি এনায়েত হোসেন বলেন, দুই পক্ষেরই মামলা হয়েছে এবং দুইজন কে আটক করে কোর্টে প্রেরণ করার পর এখন পরিস্থিতি ঠাণ্ডা।
এদিকে সোমবার এই রিপোর্ট লেখার কিছুক্ষণ আগে ফকির বাহিনীর অন্যতম নাসির ফকির কে ক্লোজার বাজার এলাকা থেকে আটক করেছে ইলিশা ফাঁড়ির পুলিশ।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইলিশা ফাঁড়ির ইনচার্জ শ্রী রতন শীল।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।