দৌলতখানে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

ভোলার দৌলতখানে পূর্বশত্রুতার জের ধরে পরিকল্পিত ভাবে মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে নাঈম নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে ওই এলাকার স্থানীয়দের সহযোগীতায় নাঈমকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দৌলতখান হাসপাতালে ভর্তি করেন।

বর্তমানে নাঈম দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এসময় তার মোটরসাইকেলে থাকা তার দুই বন্ধুও আহতহন। পরে তারা প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটে গতকাল রাত ৮টায় দৌলতখান উপজেলার চরশুভী মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকায়।

আহত ছাত্রলীগ নেতা নাঈম বোরহানউদ্দিন বড়মানিকা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মো. মান্নানের ছেলে এবং তিনি বোরহানউদ্দিন উপজেলার বড় মানিকা ইউনিয়নের ছাত্রলীগের রাজনিতীর সাথে জড়িত রয়েছেন। আহত ছাত্রলীগ নেতা নাঈমের পরিবার স্বজনরা জানান, দৌলতখান উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল অদুদের ছেলে নিজাম তিনমাস আগে মাদকসেবনসহ নানা অপকর্মে জড়িয়ে পরেন।

এতে ছাত্রলীগ নেতা নাঈম বাধাঁ সৃষ্টি করলে তাদের উভয়ের মধ্যে ঝামেলা সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে দৌলতখান ও বোরহানউদ্দিনের গণ্যমাণ্য ব্যাক্তিরা বসে বিষয়টি সমাধাণ করে দেন।

ঘটনার দিন নাঈম বোরহানউদ্দিন থেকে মোটরসাইকেল যোগে দৌলতখানের উদ্দেশ্যে তার তিন বন্ধুকে নিয়ে রওয়ানা হন।

কাজ শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে দৌলতখান চরশুভী মাদ্রাসা এলাকায় পৌঁছালে পূর্বশত্রুতার জেরে তাদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে নিজামসহ অন্তত ১০ থেকে ১৫জন তাদেরকে হামলা করে জখম করে। এতে নাঈমের মাথাসহ বিভিন্ন স্থানে গুরুত্বর জখম হয়। দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলার রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনাণুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে ।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।