দৌলতখানে পর্নোগ্রাফি মামলায় যুবক গ্রেপ্তার

ভোলার দৌলতখানে এক গৃহবধূর আপত্তিকর ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় পারভেজ নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। গতকাল বুধবার রাতে চরখলফা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মুনাফ ব্যাপারীর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

দৌলতখান থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। পারভেজ দৌলতখান চরখলিফা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের শাহাজানের ছেলে।

এর আগে ওই গৃহবধূ তার আপত্তিকর ভিডিও মানুষের কাছে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে পারভেজের বিরুদ্ধে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

দৌলতখান থানা সূত্র ও ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ জানান, কয়েক মাস আগে ওই ওয়ার্ডের শাহাজানের ছেলে পারভেজের সঙ্গে তার রং নম্বরে পরিচয় হয়। পরে বখাটে পারভেজ নিজেকে অবিবাহিত দাবি করে পরিচয় গোপন রেখে তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। পরে তাদের সামনা সামনি পরিচয় হলে তরুণী জানতে পারেন, পারভেজ বিবাহিত।

তবে প্রেমের একপর্যায়ে তরুণীর সঙ্গে পারভেজের শারীরিক মেলামেশা হয়। ওই সময়ের বিশেষ মুহূর্তের ভিডিও ও ছবি ধারণ করে রাখেন ওই বখাটে পারভেজ। পরবর্তী সময়ে এসব ভিডিও ও ছবি মানুষের কাছে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ওই তরুণীকে শারীরিক সম্পর্কের জন্য বিভিন্ন সময় ব্লাকমেইল করেন।

এরই মধ্যে পরিবারের সম্মতিতে ৪ মাস আগে পার্শ্ববর্তী এলাকার এক ছেলের সঙ্গে ওই তরুণীর বিয়ে হয়। এ সময় পারভেজ তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে না পেরে ক্ষুব্ধ হন।

গত কয়েকদিন আগে বখাটে পারভেজ ওই গৃহবধূর স্বামীর মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তার ইমো নম্বরে আগের ধারণ করা বিশেষ ওই ভিডিও ও ছবি পাঠিয়ে দিন। এতে করে তাদের দাম্পত্য জীবনে কলহের সৃষ্টি হয়। তাদের সংসার ভাঙার উপক্রম চলছে। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড়ও শুরু হয়েছে।

জানতে চাইলে দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলার রহমান জানান, অভিযুক্ত বখাটে পারভেজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী গৃহবধূ বাদী হয়ে থানায় একটি পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

অভিযুক্ত পারভেজকে ভোলা কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে বলেও জানান দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।