করোনা উপসর্গ সন্দেহে নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকা প্রেরণ, ৩ গ্রাম লকডাউন

লালমোহনে জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে ১ জনের মৃত্যু

ভোলার লালমোহনে করোনা উপসর্গ নিয়ে আবু কালাম সর্দার (৫৫) নামে এক ব্যক্তি করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গিয়েছেন। মৃত্যুর পর তার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকা পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নের কাশ্মির এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কাশ্মির, একটি গুচ্ছগ্রাম ও পাশ্ববর্তী ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাবিবুল হাসান রুমির নির্দেশে আগামী ১৪ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেন সিপিপির সহকারী পরিচালক মুন্সি নূর মোহাম্মদ।

জ্বর, পাতলা পায়খানা ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে দুপুরে আবু কালাম সরদারের মৃত্যু হয়। এরপর তথ্য গোপন করে মরদেহ শুক্রবার রাত ১১টার দিকে দাফন করার সময় বিষয়টি টের পান স্থানীয়রা। পরে স্থানীয়রা প্রসাশনকে খবর দেন। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার কাশ্মির গ্রাম, নর্থ গজারিয়া গুচ্ছগ্রাম ও পার্শ্ববর্তী ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড লকডাউন ঘোষণা করে প্রশাসন।

জানা যায় আবু কালাম সরদারের বড় ছেলের বউ প্রায় এক সপ্তাহ আগে ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন। তিনি ফরাজগঞ্জের ৯নং ওয়ার্ডে দুই দিন থাকেন। এরপর গতকাল আবু কালাম মারা যায়। রাত ১১ টায় আবু কালাম সরদার মরদেহ কাশ্মির গ্রামে দাফনের জন্য নেয়।

এব্যাপারে লালমোহন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মহসিন খান বলেন, ওই রোগীর খবর পেয়ে সকালে তার বাড়িতে গেলে প্রথমে তারা ঘটনা অস্বীকার করে। কিছুক্ষণ পর তারা ওই রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে সন্দেহ হলে তার নমুনা সংগ্রহ করি। পরে তা সিভিল সার্জন অফিসের মাধ্যমে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট আসলে বুঝা যাবে তিনি করোনা আক্রান্ত কিনা নিশ্চিত হওয়া যাবে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।