ভোলায় ৬০ টি পরিবারের পাশে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে হাজির বন্ধু মহল

বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতী নভেল করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় বিশ্ব এখন থমকে আছে। আমাদের দেশও এর ব্যাতিক্রম নয়। তাই ভাইরাস প্রতিরোধে ও সুরক্ষিত থাকতে জনগণকে ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। অসুখ বিসুখের ক্ষেত্রে বলতে হয়, প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ উত্তম যেখানে কোভিড-১৯ এর প্রতিষেধক নেই। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি সেনাবাহিনী মোতায়ন করা হয়েছে সকলে ঘরে থাকা নিশ্চিত করার জন্য।

ভোলা জেলায় এর রেশ পড়তে সময় লাগেনি। কিন্তু অসহায় হয়ে পরেছ ভোলার নিম্ম আয়ের শ্রমজীবী,  দিনমজুর, দুস্থ এবং খেটে খাওয়া মানুষগুলো। তারা বাহিরে বের হতে পারছে না, জনশুন্য থাকার কারনে তারা কাজকর্মও পাচ্ছে না। তাদের করোনাভাইরাসের থেকেও বেশী ভয়ঙ্কর হয়ে দাড়িয়েছে পরিবারের ক্ষুধার জ্বালা। এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে ভোলা শহরের বন্ধু মহল সবার উদ্যোগ যৌথ সহযোগীতায় ৬০ টি পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন এই বন্ধু মহলটি। ছাত্রনেতা রাশেদুজ্জামান হ্যাভেন, শাহিন, মিথুন,আলির সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং জি এম ছানাউল্লাহ,আশিক,হাছনাঈন,হৃদয়,কাকন,নোবেল,জিয়া,তানভির,রাকিব,নিলয়,তানজিল,অজয়,তপু সহযোগিতায় আজ (৪ এপ্রিল) ৬০ টি অসহায় দিনমুজর পরিবারের মাঝে প্রয়োজনীয় খাবার ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ছাত্রনেতা জি,এম ছানাউল্লাহ বলেন এভাবে যদি সমাজের তরুণ বন্ধু মহল, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান গুলো অথবা সমাজের বিত্তবানরা সামান্য সহযোগিতা হাত বাড়িয়ে বিভিন্ন স্থানে ত্রান-সাহায্য করে তাহলে এই মহামারী পরিস্থিতিতে অসহায় হতদরিদ্র দিনমজুর মানুষ গুলো ক্ষুদা নিবারন করে শান্তিতে দুর্যোগের সময়টায় ঘরে থাকতে পারবেন।নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মোঃ আশিক ও মোঃ তানভীর হোসেন বলেন, আমাদের সার্ধ অনু যাই আমরা চেষ্টা করেছি দিনমজুর মানুষ দের ত্রাণ দিয়ে পাশে থাকার পর্যায়ক্রমে আবারো অসহায় হতদরিদ্র দিনমজুর মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।