সর্বশেষঃ

মনপুরায় করোনা মোকাবেলায় উপকরণ নেই, ডাক্তার-নার্সদের সুরক্ষার পিপিই নেই

সেবা নিতে আসা রোগিদের

সাবান-পানি দিয়ে হাত

ধোয়ার নেই ব্যবস্থা

ভোলার মনপুরার দেড় লক্ষ মানুষের স্বাস্থ্য সেবার একমাত্র ৫০ শয্যার হাসপাতালটিতে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস মোকাবেলার কোন উপকরণ নেই। এমনকি কর্মরত চিকিৎস-নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য মাস্ক, গাউন ও হ্যান্ডগ্লোবস (পিপিই) নেই। ভয়ে ভয়ে রোগিদের চিকিসা দিচ্ছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্স।
এদিকে হাসপাতালে আসা রোগিদের সুরক্ষার জন্য পানি ও সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা নেই। এছাড়াও রোগিদের হাতে জীবাণুনাশক স্প্রে করার ব্যবস্থা নেই। এতে যে কোন সময় কোন করোনা আক্রান্ত রোগির সংর্স্পশে ডাক্তার-নার্স ও সেবা নিতে আসা রোগিদের মধ্যে ভাইরাসটি ছড়িয়ে যেতে পারে বলে আশংকা করেছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক ও স্থানীয়রা। পানি সংকটের কারনে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করা হয়নি ও জীবানুনাশক স্প্রে নেই বলে স্বীকার করেছেন হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মাহমুদুর রশীদ।


জানা যায়, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসিও বেড, ভেন্টিলেটর ও পরীক্ষারগার নেই। নামমাত্র ৩ বেডের একটি আইসোলেশন ওয়ার্ড করা হয়েছে। ওই আইসোলেশন কক্ষে তিনটি বেড ছাড়া কিছুই নেই। কর্তব্যরত চিকিৎসক-নার্স, স্বাস্থ্য কর্মীদের পিপিই নেই। এছাড়াও করোনা মোকাবেলার উপকরণ নেই। এখন পর্যন্ত করোনা পরীক্ষা করার কোন কীট হাসপাতালে আসেনি।
এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মাহমুদুর রশীদ জানান, করোনা মোকাবেলার উপকরণ দ্রুত পেয়ে যাবো। চাহিদা পাঠানো হয়েছে। করোনা রোগিদের জন্য একটি আইসোলেশন কক্ষ প্রস্তুত রয়েছে। এছাড়াও প্রতিদিন বাজারে বাজারে জনসাধারনের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টিতে মাইকিং করা হচ্ছে।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।