ভোলায় প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারি শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ এর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়ে মৌখিক পরিক্ষায় অংশগ্রহনকারী সকল প্রার্থীরা প্যানেলের মাধ্যমে তাদের নিয়োগ সম্পন্ন করার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। গতকাল ২৪ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকাল ১০ টায় ভোলা জেলার সকল উপজেলার প্রার্থীরা “বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের দেশ, বেকার মুক্ত বাংলাদেশ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ভোলা প্রেসক্লাবের সামনে বিভিন্ন প্রকার প্লাকার্ড, ব্যানার ফেস্টুন, হ্যান্ড মাইক নিয়ে প্রায় ২ টা পর্যন্ত মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় তারা সমস্বরে বলতে থাকে, “প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা মুজিব বর্ষে কেউ বেকার থাকবেনা”। প্রায় শতাধিক চাকরি প্রার্থী শিক্ষিত বেকার যুবক-যুবতি একত্রিত হয়ে মাথায় দাবি সম্বলিত বিভিন্ন রকম ফিতা বেঁধে তাদের দাবী আদায়ের শ্লোগান দিতে থাকে।
এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আন্দোলকারী সংগঠনের সাধারন সম্পাদক আল ইমরান মামুন বলেন, সরকার ২০১০, ২০১২, ২০১৩, ২০১৪ সালেও যেখানে প্যানেলের মাধ্যমে প্রায় ৪৩ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছে। সেখানে আজ কেন এর ব্যাতিক্রম হবে ? তিনি আরো বলেন, “২০১৮ সালের নিয়োগ পরিক্ষায় সারা দেশের প্রায় ২৪ লাখ পরীক্ষার্থীর মধ্য থেকে মাত্র ৫৫২৯৫ জন পরিক্ষার্থীকে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয় যা মোট পরীার্থীর মাত্র ২.৩%। তাহলে কেন আমরা চাকরী থেকে বঞ্চিত হবো ?”


মানববন্ধন শেষে তারা র‌্যালির মাধ্যমে ভোলা জেলা প্রশাসক এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেন। জেলা প্রশাসক মোঃ মাসুদ আলম ছিদ্দিক এর অবর্তমানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আতাহার মিয়া স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগে প্যানেল চাই, বাস্তবায়ন কমিটির ভোলা জেলা শাখার সভাপতি মোঃ রাকিব হাওলাদার, মোঃ আল আমিন, মোঃ মহসিন, আয়শা ছিদ্দিকা নেহাসহ ভোলা জেলার প্রায় সকল লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ন প্রার্থীগণ।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।