এলাকায় শোকের ছায়া

ভোলায় ফেসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাসের ছয় দিনের মাথায় যুবকের মৃত্যু

নিজের ফেসবুক পেজে মৃত্যু নিয়ে আবেগঘন স্ট্যাটাসের ছয় দিনের মাথায় দুনিয়া থেকে চির বিদায় নিয়ে পরপারে চলে গেলেন ভোলার এক যুবক। মৃত্যুর পর তার আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুরা তার সেই ফেসবুক স্ট্যাটাসটি স্কিনসর্ট দিয়ে নিজেদের ফেসবুক পেজে আবেগঘন আরো কিছু লেখা লিখছেন।

কিশোরের নাম মোঃ কামাল হোসেন (২০)। সে ভোলা সদর উপজেলার ০৩নং পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের ০৫নং ওয়ার্ডের মোঃ আবু মাঝির ২য় ছেলে বলে জানা গেছে।

কিশোরের পরিবারের ভাষ্য মতে, ২৩ জানুয়ারি প্রতিদিনের নেয় সে রাতের খাবার শেষে নিজের রুমে গিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। রাত প্রায় সাড়ে নয়টার দিকে ঘুমের মধ্যে হঠাৎ তার হাত পা ঝাপ্টাতে থাকে। অবস্থা খারাপ দেখে পরিবারের লোকজন তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। চিকিৎসক জানান সে ব্রেইন ষ্টক করে মৃত্যুবরণ করেছেন।

এদিকে তার ফেসবুক পেজে ১৪ জানুয়ারি ও ১৭ জানুয়ারি সে নিজেই মৃত্যুর কথাস্বরন করে তার ফেসবুক পেজে দুইটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। আর তার মৃত্যুর পরে সেই দুইটি আবেগঘন স্ট্যাটাসের স্কিনসর্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরপাক খাচ্ছে।

১৪ জানুয়ারির স্ট্যাটাসে সে তার ফেসবুক পেজে লিখেছিলেন, `স্মৃতির পাতা উল্টে দেখি, কত মানুষ জীবন থেকে হারিয়ে গেছে। কত চেনা মানুষগুলো অচেনা হয়ে গেছে। একদিন হয়তো আমিও অচেনা হয়ে যাব এই পৃথিবী থেকে`!! আবার ১৭ জানুয়ারি ঠিক মৃত্যুর ছয় দিন আগেও সে লিখেছিলো, `খুব ইচ্ছে হয়, একা দূরে কোথাও হারিয়ে যেতে`!!

আর তাই তো হারিয়ে গেছে জীবনের শেষ ঠিকানায়।

যদিও `জন্মিলে মরিতে হবে চির অমর কেউ নয়` এমন বাণীটি সত্য হলেও কিশোর কামালের এমন মৃত্যুর সংবাদটি কেউই যেন মেনে নিতে পারছেন না। তার এমন মৃত্যুতে তার পরিবারে নেমে এসেছে এক শোকের ছায়া।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।