সর্বশেষঃ

আদালতে আইএসের টুপি কীভাবে পেলেন, জানালেন সেই রিগ্যান

হলি আর্টিজানে হামলা মামলার রায়ের দিন আদালতে এক আসামির আইএসের (ইসলামিক স্টেটস) টুপি পড়া নিয়ে তোলপাড় চলছে। পুলিশ পাহারায় একজন দণ্ডিত আসামি কীভাবে আইএসের লোগো সম্বলিত টুপি পেয়েছে এবং সেটি প্রদর্শন করেছে সেটি নিয়ে প্রশ্ন ওঠেছে। মন্ত্রী থেকে শুরু করে আইনশৃংখলা বাহিনী কেউ এর সদুত্তর দিতে পারেননি।

হলি আর্টিজান মামলায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত আসামি রাকিবুল হাসান রিগ্যান এ বিষয়ে মুখ খুলেছেন।

ভিড়ের মধ্যে অপরিচিত একজন ব্যক্তি আইএসের লোগোযুক্ত টুপিটি তাকে দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন রিগ্যান। মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে হাজিরের পর এ তথ্য জানায় সে।

কল্যাণপুর জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের মামলার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমানের আদালতে মঙ্গলবার শুনানির দিন ধার্য ছিল। এ মামলার আসামি ১০ জন। এর মধ্যে একজন হচ্ছেন রিগ্যান। তাকে আজ আদালতে হাজির করা হয়।

আইএসের টুপির বিষয়ে রিগ্যানের কাছে জানতে চান আদালত। এ সময় রিগ্যান জানায়, ‘ভিড়ের মধ্যে অপরিচিত একজন তাকে টুপিটি দিয়েছেন।’

বিচারক জিজ্ঞেস করেন, আইএসের মনোগ্রাম সম্বলিত টুপি কই পেলেন? তখন রিগ্যান বলেন, ভিড়ের মধ্যে একজন টুপিটি দিয়েছে। বিচারক জানতে চান, কে দিয়েছে? রিগ্যান বলে, আমি চিনি না। তখন বিচারক বলেন, টুপিটি নিলেন কেন? কালেমা শাহাদাত লেখা ছিল, ভালো লাগায় টুপিটি নিয়েছি। বিচারক বলেন, আর কাউকে কি টুপি দিয়েছিল? তখন রিগ্যান বলে, না আর কাউকে দেয়নি। প্রিজন ভ্যানে ওঠার পর রাজীব গান্ধী আমার টুপিটি নিয়ে পড়ছে বলেন রিগ্যান।

উল্লেখ্য, রিগ্যানসহ এই মামলার ৯ জন আসামি কারাগারে আছেন। আরেক আসামি পলাতক আছে। আদালত পলাতক আসামি আজাদুল কবিরাজকে আদালতে হাজির হতে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছেন। আগামি ১৯ ডিসেম্বর মামলাটি পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য করেছেন আদালত।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।