সর্বশেষঃ

পুলিশের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দলের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হাইকোর্টের সামনে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দলের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। সে সময় কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটেছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হাইকোর্টের সামনে অবস্থান নেন দলটির নেতাকর্মীরা। তারা দীর্ঘ সময় ধরে সড়ক অবরোধ করে মুহুর্মুহু স্লোগান দিতে থাকলে দুপুর ২টার দিকে পুলিশ তাদের ধাওয়া করে।

পরে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দল পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোড়ে। এ সময় কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুরও করে তারা।

মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দলের হাতে কোনো প্রকার ব্যানার দেখা যায়নি। কেবল খালেদার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দিতে শোনা যায়। এ সময় খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়াও চাল, ডালসহ দ্রব্যমূলের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে স্লোগান দেয় নেতাকর্মীরা।

জানা গেছে, জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠান শেষে মিছিল বের করে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল। মিছিলটি প্রেসক্লাব এলাকায় অবস্থান করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধা দল পুলিশের বাধা অতিক্রম করে সুপ্রিম কোর্টের গেটের কাছে অবস্থান নেয়। সে সময় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

সুপ্রিম কোর্টের গেটের সামনে দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত অবস্থান করে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল। দীর্ঘ সময় ধরে সেখানে অবস্থান করায় পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে।

জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের অনুষ্ঠানে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, গণস্বাস্থ্যের সভাপতি ড. জাফরুল্লাহ, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফত, সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সূত্র আমাদের সময়

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।