আগামীকাল ১২ টার মধ্যে সকল মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসা হবেঃ জেলা প্রশাসক

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় প্রস্তুতি মূলক সভায় বক্তব্য রাখছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দি। ছবিঃ ভোলার বাণী।

ভোলায় অতি মাত্রায় ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় “বুলবুল” মোকাবিলায় সতর্কতার সাথে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহন করেছে জেলা প্রশাসন।

আগামীকাল দুপুর ১২ টার মধ্যে অনিরাপদ ও ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় থাকা সকল জনসাধারণকে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসা হবে এবং সেই জন্য নৌযানসহ সকল ধরনের যানবাহন প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক।

আজ সন্ধ্যা ৭ টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা কমিটির এক জরুরী প্রস্তুতি মূলক সভায় এসব কথ বলেন তিনি।

এসময় জেলা প্রশাসক বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এর কারনে এখন ৭ নম্বর সংকেত চলছে। এই দূর্যোগ মোকাবিলায় জেলা প্রশাসন এর পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। যারা আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান করবেন তাদের জন্য শুকনো খাবারেরও পর্যাপ্ত ব্যাবস্থা করা হয়েছে।

পুরো জেলায় ৬৬৮টি আশ্রয় কেন্দ্র খুলে দেওয়া হয়েছে এবং ৯২টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে যারা আশ্রয় কেন্দ্রে আসা মানুষদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবার ব্যাবস্থা করবে।

তিনি আরও জানান,দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় হতে ইতিমধ্যে আমরা পর্যাপ্ত ত্রাণ সামগ্রী পেয়েছি এর মধ্যে নগদ ১০ লাখ টাকা, ২০০ মেট্রিক টন চাল ও ২০০০ প্যাকেট শুকনো খাবার পেয়েছি। কেউ যেন অনিরাপদ স্থানে না থাকে সেই ব্যাপারে উদ্যোগ গ্রহনের পাশাপাশি কজ করছে জেলা প্রশাসন। প্রয়োজনে আরও ত্রাণ সামগ্রীর ব্যাবস্থা করা হবে বলেও জানান জেলা প্রশাসক।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক এর সভাপতিত্বে এসময় সভায় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মোঃ মাহমুদুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) শাফিন মাহমুদ,সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ কামাল হোসেনসহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।