চরফ্যাশনে মা ইলিশ রক্ষায় বিশেষ সভা

ইউএসআইডির অর্থায়নে ইকোফিশ বাংলাদেশ’র আয়োজনে কোস্ট ট্রাস্টের বাস্তবায়নে মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০.০০ মিনিটে চরফ্যাশন, মনপুরা উপজেলার এফএম সি কংগ্রেস কমিটির নেতৃবৃন্দেরকে নিয়ে কোস্ট ট্রাস্টের হল রুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম. আজহারুল ইসলাম।
এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চরফ্যাশন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহারুফ হোসেন মিনার, ইকোফিশ প্রকল্প কোস্ট ট্রাস্টের সিনিয়র প্রকল্প সমন্বয়কারি মোঃ জহিরুল ইসলাম, ওয়ার্ল্ড ফিশের গবেষণা সহকারী অংকুর মোহাম্মদ ইমতিয়াজ জামান, ইকোফিশ প্রকল্প কোস্ট ট্রাস্টের সহ-সমন্বয়কারী মো. সোহেল মাহমুদ।
কোস্ট ট্রাস্ট ভোলার টিমলিডার রাশিদা বেগমের শুভেচ্ছা বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু করেন। এসময় বিভিন্ন ইউনিয়নের ইমাম, শিক্ষক, মৎস্যজীবী ও ইউপি সদস্য ও নারী নেত্রীবৃন্ধ উপস্থিত ছিলেন। উক্ত সভায় সার্বিক সহায়তায় ছিলেন, মোঃ নোমান শরীফ, আবুল বসার, সোহেল।
এ সময় বক্তারা বলেন ভোলায় জেলেদের নদীর বৈচিত্র্য সম্পর্কে ও ইলিশের বিষয়ে অবহিত করতে ইকোফিশ সব সময় কাজ করছে। বর্তমানে ভোলার জেলেরা এ সম্পর্কে সর্তক রয়েছে। তাই ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর জেলেরা নদী থেকে সুফল পাচ্ছে। ইকোফিশ প্রকল্পের মাধ্যমে জেলে পরিবারে বিকল্প কর্ম সংস্থান তৈরী, নদীর পরিবেশ রক্ষা, জলবায়ুর ক্ষতিকারক প্রভাব মোকাবেলায় সাথে টিকে থাকা, জেলেদের মৌলিক ও মানবিক চাহিদা পূরণে সরকারী ও বেসরকারী সেবা সমূহ জেলেদের দ্বারগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার লক্ষে, কর্ম এলাকার প্রতিটি গ্রামে মৎস্য ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন করা হয়েছে ২ বছর আগে। গ্রামের কমিটিগুলো কিভাবে কাজ করছে, অর্জন সমূহ চিহ্নত করণ ও পরবর্তী করণীয় নির্ণয় করা হয়।
সভাপতি বলেন, আগামী ৯ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত মা ইলিশ রক্ষার জন্য সারাদেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরন অথবা বিক্রয় সম্পূর্ন নিষিদ্ধ ও দন্ডনীয় অপরাধ। পাশাপাশি এ বিষয়ে এফএমসি কমিটিকে দায়িত্ব প্রদান করেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।