আজ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের ২৭ তম মৃত্যুবার্ষিকী

আজ ১৭ সেপ্টেম্বর চরফ্যাশন জনপদের প্রবাদ পুরুষ জনন্দিত নেতা, সংবাদ পত্র ও সাংবাদিকতার পথিকৃৎ, ভোলা-৪ (চরফ্যাশন-মনপুরা) আসনের সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য চরফ্যাসন সরকারি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ মিয়া মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের ২৭ তম মৃত্যুবার্ষিকী। এ উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ চরফ্যাশন উপজেলা শাখা, পৌর শাখা ও সকল সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।
কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে, সকাল সকাল ৬.৩০ মি. কালো পতাকা উত্তোলন। সকাল ৭.০০ টায় খতমে কোরআন। সকাল ৮.০০ টায় খতমে তাহলিল। সকাল ৯.৩০ মি. মরহুমের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন। সকাল ১০.০০ টায় কালো ব্যাজ ধারণ ও শোক র‌্যালি। সকাল ১০.৩০ মি. মরহুমের কবরে পুস্পস্তবক অর্পণ, কবর জিয়ারত। সকাল ১০.৪০ মি. মিলাদ মাহফিল ও দোয়া মোনাজাত।
চরফ্যাসন থেকে প্রকাশিত প্রথম সংবাদ পত্র সাপ্তাহিক উপকূল’র প্রতিষ্ঠাতা, সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতার পথিকৃৎ অধ্যক্ষ মিয়া মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের ২৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চরফ্যাশন প্রেসক্লাব ১৭ সেপ্টেম্বর সকাল ৯.৩০ মি. মরহুমের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, ১০.০০ টায় কালো ব্যাজ ধারণ ও শোক র‌্যালি, ১০.৩০ মি. মরহুমের কবরে পুস্পস্তবক অর্পণ, কবর জিয়ারত, বিকাল- ৫ টায় স্মরন সভা, মিলাদ মাহফিল ও দোয়া মোনাজাতসহ ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। উল্লেখ্য, অধ্যক্ষ মিয়া মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম স্যারের আলোকিত মানুষের বর্ণাঢ্য জীবন।
শিক্ষা জীবন : ১৯৫৪সালের লর্ডহার্ডিঞ্জ মাদ্রাসা থেকে নজরুল ইসলাম ৫ম শ্রেণি পাশ করেন। তিনি লর্ডহার্ডিঞ্জ হাই স্কুলে ১০ শ্রেনী পর্যন্ত পড়ালেখা করেন। ১৯৫৯সালে বরিশালের কাশিমপুর হাই স্কুল থেকে দ্বিতীয় বিভাগে এস.এসসি, ১৯৬১সালে বরিশাল বি.এম কলেজ থেকে দ্বিতীয় বিভাগে এইচএসসি এবং দ্বিতীয় শ্রেণিতে বিএ পাশ করেন। ১৯৬৬ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে দ্বিতীয় শ্রেণিতে এমএ ডিগ্রী অর্জন করেন।
কর্মময়জীবন : ১৯৬৪সালে তিনি চরফ্যাসনের দুলারহাট হাই স্কুলে শিক্ষকতা শুরু করেন। ১৯৬৭সালে তিনি চরফ্যাশন টি,বি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদে যোগদান করেন। ১৯৬৮সালের ১আগষ্ট চরফ্যাশন কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয় এবং প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম চরফ্যাশন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৯সালে তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কমিশন পদে নিয়োগ পান। কিন্তু চরফ্যাশনের মানুষের দাবীর ও ভালোবাসার টানে তিনি সেনাবাহিনীতে যোগদান না করে। তিনি ১ অক্টোবর ১৯৬৯ থেকে চরফ্যাশন কলেজের অধ্যক্ষ পদে দায়িত্ব গ্রহন করেন। ১৯৭১সালে তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে স্হানীয় ভাবে সংগঠক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।
রাজনৈতিক জীবন : তিনি ১৯৭৯ সালে বাকেরগঞ্জ-৩ (চরফ্যাশন-লালমোহনের কিছু অংশ নিয়ে গঠিত) আসন এবং ১৯৯১ সালে দ্বিতীয়বারের মতো ভোলা-৪ (চরফ্যাশন-মনপুরা) আসন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামিলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি জাতীয় সংসদে সরকারি হিসাবে কমিটি, ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং বিমান ও পর্যটন বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য পালন করেন।
এই মনীষী ১৯৯২ সালের আজকের দিনে (১৭ সেপ্টেম্বর) ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে এবং এক কন্যাসহ বিপুল সংখ্যক গুণগ্রাহী রেখে যান। তাঁর জ্যেষ্ঠপুত্র আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এম পি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।