শুধু ছাত্রদলেরই নয়, বিএনপির তৃণমূলের কাউন্সিলেও বাধা দিচ্ছে সরকার : মোশাররফ

আদালতের আদেশে বিএনপির ছাত্র সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কাউন্সিল স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘শুধু ছাত্রদলের কাউন্সিলই নয়, বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের কাউন্সিল অনুষ্ঠানেও সরকার বাধা দিচ্ছে।’ শুক্রবার খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে স্বাধীনতা ফোরামের মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আজকে বাংলাদেশে কোনো রাজনীতি নেই, আমাদেরকে রাজনীতি করতে দেওয়া হচ্ছে না। একতরফা সব কিছু চলছে। এ সময় বিএনপিকে ‘সুসংগঠিত করার জন্য’ বিভিন্ন পর্যায়ে পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হলেও তৃণমূলে কাউন্সিল করার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি, আমাদের যে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া, আমাদের যে গণতান্ত্রিক চর্চার চেষ্টা- এটাতেও সরকার নানাভাবে বাধা দিচ্ছে।’

মহাসড়কে টোল আদায়ের সিদ্ধান্তে সরকারের অবস্থানের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় টোল হাইওয়ে আছে, সেই হাইওয়ে বিভিন্ন কোম্পানিকে দেওয়া হয়। তারা তাদের টাকায় সেই হাইওয়ে নির্মাণ করে এবং টোল নিয়ে তারা তাদের মূলধন ও লাভ নিয়ে যায়। কিন্তু বাংলাদেশের মহাসড়ক নির্মাণ করা হয়েছে জনগণের টাকায়। আর গাড়ি এসব মহাসড়কে চলার জন্য সকল প্রকার রোড ট্যাক্স দেয়। তাহলে আবার টোল কেন? অর্থাৎ দেশের রাজস্ব ভাণ্ডার এতই শূন্য যে হাইওয়ে থেকে টোল নিয়ে সরকার চালাতে হচ্ছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ চাইলে দেশের গণতন্ত্র পুনঃ-প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। সেজন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
স্বাধীনতা ফোরামের উদ্যোগে এই মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করে সংগঠনের সভাপতি আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, শাহ নেছারুল হক, সাঈদ আহমেদ আসলাম, ফরিদউদ্দিন, কাজী মনিরুজ্জামান, মিয়া মো. আনোয়ার, সাঈদ হাসান মিন্টু, ইসমাইল তালুকদার খোকন, জাহাঙ্গীর আলম, জাতীয় দলের এহসানুল হুদা মানববন্ধনে বক্তব্য দেন।

ফেসবুকে লাইক দিন

আমাদের সাইটের কোন বিষয়বস্তু অনুমতি ছাড়া কপি করা দণ্ডনীয় অপরাধ।
দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।